.

সিলেটে সে'নানিবাসের টাকা আত্মসাতকারী সেই আবেদ কারাগারে

সিলেট টাইমস ডেস্কঃ সিলেটে সে'নাবাহিনীর নতুন ক্যান্টনমেন্টের জন্য সিলেট জে'লা প্রশাসকের কার্যালয় সিলেট কর্তৃক ভূমি অধিগ্রহণের ক্ষতিপূরণবাবদ ২০ কোটি টাকা আত্মসাতের মা'মলায় সিআইডির হাতে গ্রে'প্তার আবিদ উদ্দিন’কে (৫৫) কারাগারে প্রেরণ করা হয়েছে।সোমবার (২ ডিসেম্বর) আ'দালতের মাধ্যমে তাকে কারাগারে প্রেরণ করা হয়। গ্রে'প্তার হওয়া আবিদ উদ্দিন গো'লাপগঞ্জ উপজে'লার বাঘা ইউনিয়নের রুস্তমপুর এলাকার মৃ'ত ডা. আমিন উদ্দিনের ছে'লে। এছাড়া তিনি সিলেট জে'লা ছাত্রদলের সাবেক সাধারণ সম্পাদক এনামুল হক মুন্নার বড় ভাই বলে জানা গেছে।এর আগে রোববার (১ ডিসেম্বর) বিকাল আনুমানিক ৪ টার দিকে সিলেট নগরী থেকে তাকে গ্রে'প্তার করা হয়।

এদিকে আবিদ উদ্দিনকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আ'দালতে রি'মান্ড আবেদন করা হবে বলে জানিয়েছেন সিআইডি সিলেট জোনের সিনিয়র সহকারী পু'লিশ সুপার মো. এম'রান আলী পিপিএম। তিনি বলেন, আজ (সোমবার) কোর্ট শেষ হয়ে যাওয়ার কারণে আ'দালতে শোনানি হয়নি। তবে শোনানির দিন আম'রা আ'সামিকে জিজ্ঞাসাবাদের হেফাজতে দিতে আ'দালতে আবেদন করবো।

এর আগে ২০১৮ সালের ৩ আগস্ট সিলেট সদর উপজে'লা ভূমি অফিসের ভূমি অধিগ্রহণ কর্মক'র্তা মামুনুর রহমান বাদী হয়ে সিলেট মেট্রোপলিটন পু'লিশের কোতোয়ালি থা'নায় মা'মলা'টি দায়ের করেন। প্রথমে এ মা'মলার ত'দন্তের দায়িত্ব পান এসআই (নিরস্ত্র) সাব্বির আরাফাত জনি। পরে মা'মলা'টির দায়িত্বভা'র পড়ে গোয়েন্দা বিভাগের হাতে। পরে গোয়েন্দা বিভাগ থেকে মা'মলা'টি সিআইডি’র কাছে হস্তান্তর করা হয়। সিআইডি’র দীর্ঘ ত'দন্তের পর মা'মলার একক আ'সামি আবিদ উদ্দিনকে গ্রে'প্তার করা হয়।

মা'মলার এজাহার সূত্রে জানা যায়, সিলেট জে'লাধীন ১৭ পদাতিক ডিভিশনের ক্যান্টনমেন্ট নির্মাণের জন্য জে'লা প্রশাসকের কার্যালয় এল. এ মা'মলা নং ০১/২০১৩-১৪ মূলে ভূমি অধিগ্রহণ করা হয়। অধিগ্রহণকৃত ভূমির ক্ষতিপূরণের জন্য ভূমির প্রকৃত মালিকদের নির্ধারিত পরিমাণ টাকা প্রদান করা হয়। কিন্তু দাবিদারদের মধ্যে আবিদ উদ্দিন বিভিন্ন ব্যক্তির জাতীয় পরিচয়পত্র, জালিয়াতির মাধ্যমে জাল আমমোক্তারনামা তৈরি করে এর সাথে জাল দলিলাদিসহ সংযুক্ত করে তা দাখিলের মাধ্যমে ২০ কোটি টাকা উত্তোলন করেন। পরবর্তীতে সিলেটের অ'তিরিক্ত বিভাগীয় কমিশনার (রাজস্ব) মৃণাল কান্তি দেব ভূমি অধিগ্রহণ শাখা পরিদর্শন করলে বিষয়টি ধ'রা পড়ে। এরপর তিনি একটি প্রতিবেদনে জালিয়াতির বিষয়টি উল্লেখ করলে ভূমি অধিগ্রহণ কর্মক'র্তা মামুনুর রহমান বাদী হয়ে মা'মলা'টি দায়ের করেন।

সূত্রঃসিলেট ভ'য়েস

Back to top button