.

বড়লেখা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ওষুধ পাচ্ছেন না রোগীরা, ব্যবস্থাপত্র দিয়েই বিদায়!

সিলেট টাইমস ডেস্কঃ বড়লেখা উপজে'লা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে গত ৩ মাস ধরে জ্বর, মা'থা ব্যথা, সর্দি-কাশি ও পেটের গ্যাস সমস্যার সাধারণ ওষুধও পাচ্ছে না রোগীরা। জরুরী বিভাগের চিকিৎসকরা ওষুধ নেই বলেই রোগীদের বিদায় করছেন। হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের দাবী চাহিদা অনুয়ায়ী জে'লা ষ্টোর থেকে প্যারাসিটামল, হিস্টাসিন ও এন্টাসিড জাতীয় ওষুধ সরবরাহ না করায় হাসপাতালে এসব ওষুধের সংকট দেখা দিয়েছে।

জানা গেছে, ৫০ শয্যার বড়লেখা হাসপাতালের বহির্বিভাগে প্রতিদিন উপজে'লার দুরদুরান্ত থেকে ৭০ হতে ১৫০ জন রোগী বিভিন্ন সমস্যা নিয়ে লাইনে দাঁড়িয়ে টিকেট সংগ্রহের পর জরুরী বিভাগের চিকিৎসকের সাক্ষাৎ পান। কিন্তু কর্তব্যরত ডাক্তার ব্যবস্থাপত্র দিলেও হাসপাতালে ওষুধ নেই বলে রোগীদের বিদায় করছেন। প্রায় ৩ মাস ধরে হাসপাতাল থেকে ব্যবস্থাপত্র পেলেও জ্বর, সর্দি-কাশি, এলার্জি ও পেটের গ্যাস সমস্যার কোন ওষুধও পাচ্ছেন না আগত রোগীরা। দরিদ্র রোগীরা বাইর থেকে ওষুধ কেনার সাম'র্থ না থাকায় চিকিৎসা বঞ্চিত হচ্ছে।

হাসপাতালে আগত ভুক্তভোগী আব্দুর রহমান (টিকেট নং-১৭০৮৮) জানান, তিনি অ'ত্যন্ত দরিদ্র মানুষ। গায়ে প্রচন্ড জ্বর ও মা'থা ব্যথার চিকিৎসা করতে সরকারী হাসপাতালে যান। দীর্ঘক্ষণ লাইনে দাঁড়িয়ে টিকেট সংগ্রহের পর ডাক্তারের দেখা পান। তিনি ওষুধ লিখে ব্যবস্থাপত্র দিয়ে বলেন, হাসপাতালে ওষুধ নেই বাইরে থেকে কিনতে হবে। প্রায় ৩ মাস ধরে রোগিদের এভাবেই চিকিৎসা দিচ্ছে সরকারী এ হাসপাতালটি।

উপজে'লা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মক'র্তা ডা. আহম্ম'দ হোসেন জানান, প্রতি সপ্তাহে প্যারাসিটামল, হিস্টাসিন ও এন্টাসিড জাতীয় প্রায় ১০ হাজার ট্যাবলেটের চাহিদা রয়েছে। কিন্তু সে অনুযায়ী সরবরাহ করা হয় না। বারবার চাহিদাপত্র পাঠানোর পরও ওষুধ না পওয়ায় আগত অনেক রোগীকে ওষুধ দেয়া সম্ভব হচ্ছে না। সুত্রঃদৈনিক জালালাবাদ

Back to top button