.

গাঁজা ব্যবসায়ীদের নিরাপদ আস্তানা সিলেট নগরীর কিনব্রিজ

সিলেট টাইমস ডেস্কঃ গাঁজা বিক্রয়কারীদের নিরাপদ আস্তানা এখন নগরীর ঐতিহ্যবাহী কিনব্রিজ। গাঁজা সেবন এবং বিক্রয়ে স্থানটি নিরাপদ থাকায় দেদারসে বিক্রী হচ্ছে গাঁজা। গাঁজা বিক্রয় এবং সেবনের এই দৃশ্য এখন নগরবাসীর চিরচেনা। বিকেল বেলা কিনব্রিজের সৌন্দর্য্য উপভোগ করতে আসা পথচারীরাও এই ঘটনায় অনেকটা বিব্রত বোধ করেন। মা'দকসেবীদের নিয়মিত এই আড্ডার ছন্দপতন না ঘটলেও থা'না পু'লিশের অ'ভিযান চোখে পড়েনি কখনো। ফলে অনেকটা নির্বিঘেœ চলছে ভাসমান ব্যবসায়ীদের গাঁজা ব্যবসা। ব্রিজের রেলিংয়ে বসে মা'দক সেবন করার দৃশ্য এখন অনেকের কাছেই পরিচিত হয়ে উঠেছে।

মহানগরের কোতোয়ালি মডেল থা'নার অন্তত ২০০ গজের মধ্যে কিনব্রিজের নিচের এলাকাটি গাঁজা বেচাকেনার স্থান হিসেবে ব্যবহৃত হচ্ছে বলে অ'ভিযোগ পাওয়া গেছে। দিনরাতে সমানতালে এখানে গাঁজা বিক্রি ও সেবন করা হচ্ছে। তবে তা রোধে পু'লিশ কার্যকর কোনো ভূমিকাই নিচ্ছে না বলে স্থানীয় লোকজনের অ'ভিযোগ।
তবে কোতোয়ালি মডেল থা'নার ভারপ্রাপ্ত কর্মক'র্তা (ওসি) মো. সেলিম মিঞা দাবি করেছেন, কিনব্রিজ এলাকায় গাঁজার কোনো হাট নেই। এখানে কিছু ভাসমান মানুষ গাঁজা সেবন করতে আসে।

কিনব্রিজ এলাকায় রয়েছে সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোট, সম্মিলিত নাট্য পরিষদের মহড়াকক্ষ ও সুরমা নদীর দৃষ্টিনন্দন পাড়। মহড়াকক্ষে প্রতিদিনই কোনো না কোনো অনুষ্ঠান লেগে থাকে। অন্যদিকে বিকেল থেকে মধ্যরাত পর্যন্ত সৌন্দর্যপিপাসু নগরবাসী সুরমা নদীর পারে আড্ডা দিতে আসেন। অথচ কিনব্রিজ এলাকায় প্রতিদিনই গাঁজার গন্ধ বাতাসে ভেসে বেড়ায়। এ ছাড়া একই এলাকায় সিলেট সার্কিট হাউসের অবস্থান। সামান্য একটু দূরে সিলেট সরকারি পাইলট উচ্চবিদ্যালয় ও নগরের বৃহত্তর পাইকারি ব্যবসাস্থল কালীঘাট এলাকা অবস্থিত।

সিলেটের সংস্কৃতি অঙ্গনের একাধিক ব্যক্তি জানান, কোতোয়ালি মডেল থা'নার দেড় শ থেকে দুই শ গজ দূরে কিনব্রিজ এলাকার অবস্থান। এখানে প্রতিদিন অনেকটা প্রকাশ্যেই মা'দকসেবীরা গাঁজা সংগ্রহ করে। রয়েছে মা'দকসেবীদের উৎপাতও। পু'লিশ মাঝেমধ্যে মা'দকসেবী ও ব্যবসায়ীদের এ স্থান থেকে উঠিয়ে দেয়। মঙ্গলবার দুপুরে সরেজমিনে দেখা গেছে, কিনব্রিজের লোহার বেষ্টনীর বেশ কয়েকটি স্থানে বসে একাধিক তরুণ গাঁজাসহ নে'শা দ্রব্য সেবন করছে।
তাদের দাবি- প্রচুরসংখ্যক নগরবাসী বিকেল থেকে এখানে অবসর কা'টাতে আসেন। এ ছাড়া কিনব্রিজ এলাকায় সারদা হল-সংলগ্ন ভবনে নগরের দুটি প্রধান সম্মিলিত সাংস্কৃতিক সংগঠনের পাশাপাশি কিছু সাংস্কৃতিক সংগঠনের মহড়াকক্ষও রয়েছে। অথচ স্থানটির পরিবেশ খুব একটা সুখকর নয়। সব সময়ই এখানে মা'দকসেবীরা থাকে। এতে নগরের সচেতন বাসিন্দারা স্থানটিতে বিব্রত ও অস্বস্তিবোধ করে থাকেন।

মা'দকসেবী ও স্থানীয় কয়েকজন ভ্রাম্যমাণ ব্যবসায়ীর সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, কিনব্রিজ এলাকায় সাধারণত নিম্ন আয়ের শ্রমজীবী শ্রেণির মানুষেরাই মা'দক কেনাবেচায় সম্পৃক্ত। এসব মা'দকের ক্রেতা হচ্ছে রিকশা ও ট্রাকের চালক থেকে শুরু করে নগরের সাধারণ মানুষ। তবে এখানে গাঁজাই সবচেয়ে বেশি বিক্রি হয়। এর বাইরে মাঝেমধ্যে হেরোইন ও ইয়াবা বিক্রি হয়। দিনভরই এখানে মা'দক বেচাকেনা হয়। এক দশক ধরে এ স্থানটিতে কমবেশি মা'দক ব্যবসা চলে আসছে বলে তাঁরা নিশ্চিত করেছেন।

সূত্রঃ সিলেট প্রতিদিন

Back to top button