.

বড়লেখায় অন্যের স্ত্রী'কে জড়িয়ে ফেসবুকে অশ্লীল পোস্ট, প্রবাসীকে খোঁজছে পু'লিশ

সিলেট টাইমস ডেস্কঃ মৌলভীবাজারের বড়লেখায় বাবার বাড়িতে বসবাসকারী এক গৃহবধুকে জড়িয়ে ফেসবুকে অশ্লীল ছবি ও বাজে কথাবার্তা লেখা পোস্ট ছড়িয়ে দেয়া দুবাই প্রবাসী আহম'দ হোসেন রুয়েলকে খোঁজছে পু'লিশ। সে বিয়ানীবাজার উপজে'লার গুরেরটেকা গ্রামের মক্তার আলীর ছে'লে।সম্প্রতি সে দেশে ফিরলে ওই গৃহবধু তার বি'রুদ্ধে থা'নায় অ'ভিযোগ করেন। শনি ও রোববার দুই দফা পু'লিশ রুয়েলকে গ্রে'ফতার করতে তার বাড়িতে অ'ভিযান চালিয়েছে। কিন্তু পু'লিশের উপস্থিতি টের পেয়ে প্রতিবারই সে পালিয়ে যায়।

ভুক্তভোগী গৃহবধুর (২৫) অ'ভিযোগ সুত্রে জানা গেছে, ২০১৮ সালের ১৪ মে ইটালি প্রবাসী এক যুবকের সাথে তার বিয়ে হয়। এরপর থেকে গৃহবধু বড়লেখায় বাবার বাড়িতে বসবাস করেন। বিয়ের ১১ দিন পর থেকে বিয়ানীবাজার উপজে'লার গুরেরটেকা গ্রামের মুক্তার আলীর ছে'লে দুবাই প্রবাসী আহম'দ হোসেন রুয়েল (৪৫) দুবাইয়ে বসে মোবাইল ফোনে গৃহবধু, তার মা ও ভাইকে অশ্রাব্য ভাষায় গালি গালাজ ও হুমকি প্রদান করে। গৃহবধুর চরিত্র হননের উদ্দেশ্যে নিজের ও বিভিন্ন ফেইক আইডি থেকে ধারাবাহিকভাবে বাজে ছবি ও নোংরা কথাবার্তা লিখে পোস্ট করতে থাকে।

ম্যাসেজের মাধ্যমে ওই গৃহবধুর স্বামীর নিকটও এসব অশ্লীল (এডিটিং) ছবি ও নানা কটুক্তি পাঠাতে দিতে থাকে। এতে ওই গৃহবধু সামাজিকভাবে হেয় প্রতিপন্ন এবং মানসিকভাবে বিপর্যস্ত হন। লোক লজ্জায় ঘর থেকে বের হওয়া বন্ধ করে দেন। প্রবাসে থাকা স্বামীর সাথে স'ম্পর্কের অবনতি ঘটায় মানসিকভাবে ভেঙ্গে পড়েন। অবশেষে গত ৩ অক্টোবর রুয়েল দুবাই থেকে দেশে ফিরলে ৪ অক্টোবর তিনি বড়লেখা থা'নায় অ'ভিযোগ দায়ের করেন।

অ'ভিযোগের ত'দন্ত কর্মক'র্তা এসআই রাকিব মোহাম্ম'দ জানান, অ'ভিযোগ পাওয়ার পরই আসামীকে গ্রে'ফতারের জন্য বিয়ানীবাজারে তার বাড়িতে দুই দফা অ'ভিযান চালিয়েছেন। কিন্তু পু'লিশের উপস্থিতি টের পেয়ে সে সট'কে পড়ে। তাকে গ্রে'ফতারের অ'ভিযান অব্যাহত রয়েছে।

সূত্রঃসুরমা নিউজ

Back to top button