হবিগঞ্জে ভ্রাম্যমাণ আ'দালতের ভ'য়ে দৌড়, পা ভেঙে হাসপাতা'লে বৃদ্ধ

সিলেট টাইমস ডেস্কঃহবিগঞ্জের বাহুবলে করো'না সংক্রমণ বিস্তার রোধে উপজে'লা অ'ভিযান চালায় প্রশাসন। এ সময় সিদ্দিক আলী (৫৫) নামে এক ক্ষুদ্র ব্যবসায়ী ভ'য়ে দৌড়ে পালাতে গিয়ে পা ভেঙে হাসপাতা'লে ভর্তি হয়েছেন।বুধবার রাত সাড়ে ৯টার দিকে উপজে'লা মিরপুরের চেরাগ আলী ফিলিং স্টেশন সংলগ্ন এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।আ'হত ব্যবসায়ী সিদ্দিক আলী উপজে'লার মিরপুর ইউনিয়নের কামা'রগাঁও গ্রামের মৃ'ত আ. রহমানের পুত্র।

ভুক্তভোগীর পরিবারের সদস্যরা জানান, করো'নাভাই'রাস পরিস্থিতিতে জনশূন্য রাতে চু'রি হওয়ার ভ'য়ে প্রতিদিনের ন্যায় শনিবার রাত সাড়ে ৯টার দিকে ঘুমানোর জন্য স্টেশনারী দোকানে আসেন সিদ্দিক আলী। এ সময় উপজে'লা সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট খৃস্টফার হিমেল রিছিলের নেতৃত্বে ভ্রাম্যমাণ আ'দালতের অ'ভিযান শুরু হয়। দোকান খোলা রাখায় এক ব্যবসায়ীকে জ'রিমানাও করা হয়।

একপর্যায়ে ভ'য়ে পালাতে গিয়ে সিদ্দিক আলী পার্শ্ববর্তী পাকা সিঁড়িতে পড়ে পা ভেঙ্গে গুরুতর আ'হত হন। এ সময় উপস্থিত স্থানীয় লোকজন উ'দ্ধার করে হবিগঞ্জ আধুনিক সদর হাসপাতা'লে ভর্তি করেন। পরে অবস্থার অবনতি হলে রোববার সকালে তাকে সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতা'লে ভর্তি করা হয়।

আ'হত সিদ্দিক আলীর ছে'লে সুমন আহমেদ যুগান্তরকে বলেন, গত দুই মাস লকডাউনের সময় দুইবার আমাদের দোকানঘরটি চু'রি হয়েছিল, এই ভ'য়ে পাহারার জন্য প্রতিদিন রাতে আমা'র বাবা দোকানে থাকেন। রাতে হঠাৎ দোকানের সাটারে প্রশাসনের লোক লা'ঠি দিয়ে প্রচণ্ড বেগে আ'ঘাত করতে থাকলে ভ'য়ে পালাতে গিয়ে পড়ে তিনি পায়ে মা'রাত্মক আ'ঘাতপ্রাপ্ত হন।উপজে'লা সহকারী কমিশনার (ভূমি) খৃস্টফার হিমেল রিছিলের সঙ্গে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে কথা বললে তিনি বলেন, ‘আপনি কনফার্ম হলেন কী'ভাবে? আপনি কি ছিলেন সেখানে? কোন্ দোকানে ছিলেন উনি?’

সূত্রঃযুগান্তর

Back to top button
.