খুলছে সিঙ্গাপুরের ম'সজিদ, অ্যাপ জানিয়ে দেবে জুমা'র স্থান

সিলেট টাইমস ডেস্কঃ সিঙ্গাপুরের ম'সজিদগুলো ২৬ জুন থেকে ধীরে ধীরে খুলে দেয়া হবে। তবে জুমা'র নামাজের জন্য অ্যাপের মাধ্যমে বুকিং করতে হবে। প্রার্থনার স্থানগু'লি কঠোর নিরাপদ পরিচালনার ব্যবস্থা থাকবে। ২১ শে জুন দেশটির ইস'লামিক রিলিজিয়াস কাউন্সিল অব সিঙ্গাপুর (এমইউআই'এস) এমন ঘোষণা দিয়েছে।জাতীয় নির্দেশনাগু'লির সাথে সামঞ্জস্য রেখে ম'সজিদগু'লিকে একটি অনলাইন নামাজের স্থান বুকিং সিস্টেম চালু করা হবে। যার মাধ্যমে যারা সালাত আদায় করবে তাদের নামাজের স্লট বুক করা প্রয়োজন হবে৷

অনলাইন বুকিং সিস্টেম সকাল ৯টায় বুধবার, ২৪ জুন থেকে শুরু করা হবে। ম'সজিদগু'লিতে প্রবেশ কেবলমাত্র এনআরসি/ এফআইএন ব্যবহার করে সেফ এন্ট্রির মাধ্যমে পাওয়া যাবে এবং ট্রেস টুগেদার অ্যাপ্লিকেশনটির ব্যবহারের উৎসাহ দেওয়া হয়েছে।সিস্টেমটি দৈনিক এবং শুক্রবারের জামাতের নামাজের স্থান সংরক্ষণের অনুমতি দেবে। শুক্রবারের নামাজের জন্য, নিরাপদ জনতা ব্যবস্থাপনার জন্য দুটি সেশনের মধ্যে আধা ঘণ্টার ব্যবধানে দুটি ৩০ মিনিটের প্রার্থনা সেশন থাকবে। খুতবা এবং নামাজ সর্বাধিক ২০ মিনিটের জন্য সংক্ষিপ্ত করা হবে।

আরও নামাজীদের জুমা আদায় করতে সক্ষম করতে, অনলাইন প্রার্থনা বুকিং সিস্টেম প্রতি তিন সপ্তাহে একজন ব্যক্তি জুমা'র নামাজের জন্য বুকিংয়ের সংখ্যা সীমাবদ্ধ করে দেবে। যে সকল ব্যক্তি জুমা'র নামাজের জন্য স্লট পেতে সক্ষম নন, তাদের জন্য ফাতওয়া কমিটি পরাম'র্শ দিয়েছে যে জুমা'র নামাজের স্থলে নিয়মিত দুপুর (জুহুর) নামাজ আদায় করা যথেষ্ট।এই ছাড়টি তাদের ক্ষেত্রেও প্রযোজ্য যারা সংক্রমিত এবং সংক্রমণের ঝুঁ'কিতে রয়েছেন, যেমন ৬০ বছর বা তার বেশি বয়সের প্রবীণরা, যাদের পূর্ব-বিদ্যমান দীর্ঘস্থায়ী অবস্থা রয়েছে এবং ১২ বছরের কম বয়সী বাচ্চাদের ক্ষেত্রে।

যারা এখনও ম'সজিদগু'লি দেখতে চান তবে স্লট পেতে অক্ষম, তারা ব্যক্তিগত উপাসনার জন্য প্রার্থনা সেশনের বাইরে ম'সজিদগু'লি দেখতে পারেন। প্রতিদিনের জামাতে নামাজের জন্য, ম'সজিদগু'লি আজান (প্রার্থনা ডাক) এর পরপরই দৈনিক ৫ ওয়াক্ত জামাতের নামাজে প্রত্যেকবার ৫০ জন নামাজ আদায় করতে পারবেন৷অনলাইনে বৈধ বুকিং যারা করবে প্রতিদিনের জামাতের নামাজের জন্য শুধুমাত্র তাদেরই ম'সজিদে প্রবেশের অনুমতি দেওয়া হবে। স্লটগু'লি বুকিং সিস্টেমের মাধ্যমে প্রথম আসুন-প্রথম পরিবেশন ভিত্তিতে দেওয়া হবে।

চারটি ম'সজিদ বন্ধ থাকবে; ম'সজিদ আবদুল গাফুর, বেনকুলেন, আলউই, ম'সজিদ বুরহানি। জায়নামাজ নির্দিষ্ট স্থানে ১ মিটার দূরে স্থাপন করতে হবে;এমইউআই'এসের এক প্রেস বি'জ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে, নামাজে অংশ নেওয়া উপাসকদের মধ্যে ১ মিটার দূরত্ব নির্ধারিত জায়গায় নামাজ আদায় করতে হবে। ই'মাম'রা প্রথম সারির থেকে কমপক্ষে ২ মিটার দূরে দাঁড়াবেন এবং খুতবা দেওয়ার সময় তাদের মাস্ক পরতে হবে৷এমইআইআই'এস-এর মতে, যারা নামাজ আদায় করতে আসবে তাদের অন্যের সাথে মিশে যাওয়া উচিত নয় এবং নামাজ শেষ হবার সাথে সাথেই ম'সজিদ ত্যাগ করা উচিত। ম'সজিদগু'লি ২৬ জুন এই শুক্রবার থেকে শুরু করে নিম্নলিখিত সুরক্ষিত ব্যবস্থাপনাগু'লি কার্যকর করবে।

১. তারা পৃথক প্রবেশদ্বার এবং প্রস্থানের ব্যবস্থা করবে এবং প্রার্থনা অঞ্চলে একক প্রবেশদ্বার এবং প্রস্থান পথ বজায় রাখবে।

২. পানি ছড়িয়েপড়া রোধ করতে পর্যাপ্ত নিরাপদ দূরত্ব এবং পানি প্রবাহ হ্রাস করার জন্য ওয়াশিং পয়েন্টগু'লি পরিবর্তন করা হবে।

৩) শীতাতপ নিয়ন্ত্রণ ব্যবস্থা থেকে ফ্যান পুনর্ব্যবহার করা থেকে অ্যারোসোল সংক্রমণ সম্ভাবনা হ্রাস করার জন্য প্রার্থনা হলগু'লিতে ব্যবহার করা হবে।

যারা ম'সজিদে আসবে তাদের নিম্নলিখিত পদক্ষেপগু'লি মেনে চলার পরাম'র্শ দেওয়া হয়:

১) ম'সজিদে আসার আগে অজু করে আসবেন।

২) নামাজের সময়সহ ম'সজিদ প্রাঙ্গণে সর্বদা মাস্ক পরিধান করুন৷

৩) তাদের নিজস্ব ব্যক্তিগত প্রার্থনা আইটেমগু'লি যেমন; জায়নামাজ নিয়ে আসতে হবে৷

৪) প্রার্থনার পরে দ্রুত এবং আরও সুশৃঙ্খলভাবে বের হবার সুবিধার্থে জুতার ব্যাগ সঙ্গে আনতে হবে৷

৫) ম'সজিদে প্রবেশের সময় এবং ম'সজিদ থেকে বের হওয়ার সময় কথা বলার থেকে বিরত থাকতে হবে৷

Back to top button
.