আ'মেরিকায় ট্যাক্স ফাঁকি মা'মলায় অ'ভিযুক্ত সিলেটের টোপন : হতে পারে জে'ল-জ'রিমানা

সিলেট টাইমস ডেস্কঃইউনাইটেড এস্টোরিয়া হালাল লাইভ পোল্ট্রি’ নামক মুরগীর খামা'রের মালিক সিলেটের মোহাম্ম'দ আব্দুল ওয়াহিদ (টোপন) ইমিগ্রেশনের ভ'য় দেখিয়ে অ'বৈধ ইমিগ্র্যান্টদের ঠকিয়ে কাজ করিয়ে নেয়ার অ'ভিযোগ উঠেছে। পাশাপাশি ২০১৩ থেকে ২০১৬ সাল পর্যন্ত চার বছরের ট্যাক্স ফাঁকি দেয়ার মা'মলায়ও অ'ভিযুক্ত তিনি।ইতোমধ্যে আব্দুল ওয়াহিদ (টোপন) তার উপর আনিত অ'ভিযোগ স্বীকার করেছেন। নিউজার্সি ফেডারেল কোর্টের সহকারি ইউএস এটর্নী মেরিডিথ উইলিয়ামস’র সাথে টোপনের (৫৮) এই দোষ স্বীকারের চুক্তিপত্র হয়েছে গত ২৯ জানুয়ারি।

সিলেটের সন্তান টোপনের আইনজীবী জ্যাভি সারজেন্ট দোষ স্বীকার পরিক্রমা'র বিস্তারিত সমন্বয় সাধন করেছেন। স্বীকারোক্তির পরিপ্রেক্ষিতে ট্যাক্স ফাঁকির ৩ অ'ভিযোগে সর্বোচ্চ ১১ বছরের কারাদ'ণ্ড এবং এক মিলিয়ন ডলারের জ'রিমানা হতে পারে।এছাড়া, ২০১১ সালের জুলাই থেকে ২০১৬ সালের জানুয়ারি পর্যন্ত যেসব শ্রমিককে তিনি নিউইয়র্কের এস্টোরিয়াস্থ ‘ইউনাইটেড এস্টোরিয়া হালাল লাইভ পোল্ট্রি’ থেকে নিউজার্সির পার্থ এ্যাম্বয়েতে ‘আ'মেরিকান হালাল লাইভ পোল্ট্রি’তে এনে সপ্তাহের ৬/৭ দিনে ৭০ থেকে ১০০ ঘন্টা করে কাজ করিয়ে নেয়ার পর প্রচলিত রীতি অনুযায়ী অভা'রটাইম দূরের কথা নূন্যতম মজুরিও প্রদান করা হয়নি এসব শ্রমিককে-মা'মলায় রয়েছে এমন অ'ভিযোগ।

এমনকি, এসব শ্রমিককে মুরগী খামা'র সংলগ্ন একটি কক্ষে থাকতে দেয়া হয়, এজন্যে সপ্তাহে ৪০ ডলার করে কে'টে নেয়া হয় মজুরি প্রদানের সময়। যদিও সেই ঘরে ছিল না গরম পানি কিংবা শীতের সময় হীটিং সিস্টেম। পোকা-মাকড়ের সাথেই রাত কা'টাতে হয় শ্রমিকদেরকে। একেকজনকে কাজের বিপরীতে সপ্তাহে দেয়া হতো মাত্র ২৯০ ডলার করে।মা'মলায় আরো অ'ভিযোগ রয়েছে, হালাল চিকেনের ফর্মূলা শতভাগ কার্যকর করতে দু’জন মোল্লাহ নিয়োগ করা হয়েছিল। মুরগী জবাইয়ের সময় হাত মোজা, মাস্ক, এবং জবাইয়ের পর রীতি অনুযায়ী ভালো করে হাত ধোয়ার জন্যে সাবান চাইলে টোপন তাদের ওপর ক্ষেপে যান এবং ইমিগ্রেশন পু'লিশের হু'মকি দেন। কারণ, তারাও ছিলেন অ'বৈধ ইমিগ্র্যান্ট। মা'মলার বিবরণে প্রকাশ, টোপন ভেবে-চিন্তা করেই অ'বৈধ ইমিগ্র্যান্টদের দিয়ে কাজ করান ন্যায্য পারিশ্রমিক না দেয়ার অ'ভিপ্রায়ে।

টোপন তার স্বীকারোক্তিতে উল্লেখ করেছেন যে, ‘২০১৩ সালের অক্টোবর থেকে ২০১৬ সালের নভেম্বর (গ্রে'ফতারের আগ) পর্যন্ত উপরোক্ত দুটি পোল্ট্রি ফার্মের কর্মচারিদের এ্যামপ্লয়মেন্ট ট্যাক্স রেকর্ড আইআরএস (ট্যাক্স ডিপার্টমেন্ট)-এ সাবমিট করলেও সাথে পে-রোল ইনফরমেশন দেইনি। এভাবেই মিথ্যা তথ্য দিয়ে ট্যাক্স রিটার্ন দিয়েছি। এভাবে আমি উপরোক্ত সময়ে ৩ লাখ ৩৫ হাজার ৫০৯ ডলার ৮৯ সেন্টের ট্যাক্স ফাঁকি দিয়েছি।’ দোষ স্বীকারের পরিপ্রেক্ষিতে মাননীয় আ'দালত যে শা'স্তি দেবেন তার বি'রুদ্ধে আর কোন আপিল করা যাবে না কিংবা ইমিগ্রেশনের স্ট্যটাসের কারণে টোপনকে যদি কারাভোগের পর যুক্তরাষ্ট্র থেকে বাংলাদেশে ডিপোর্ট করা হয় (অর্থাৎ টোপন সিটিজেন না হয়ে থাকলে) তাহলে সেটি তিনি বিনা বাক্যব্যয়ে মেনে চলবেন বলে উল্লেখ রয়েছে লিখিত চুক্তি নামায়।

মা'মলার গতি প্রকৃতি বিস্তারিতভাবে বাংলা ও ইংরেজীতে অবহিত করেছেন এটর্নী সার্জেন্ট। স্বীকারোক্তির সময় টোপন উল্লেখ করেছেন যে, ইংরেজী তার মাতৃভাষা নয়। ইউনিভা'র্সিটিতে দু’বছর পড়ার পরই লেখাপড়ার পাট চুকিয়ে ফেলেছেন।আ'দালত সূত্রে জানা গেছে, ৭ পাতার এই দোষ স্বীকারের শর্ত অনুযায়ী শীঘ্রই মো. আব্দুল ওয়াহিদ (টোপন)’র জে'ল-জ'রিমানা ঘোষণা করা হবে।উল্লেখ্য, টোপনের সাথে মোহাম্ম'দ ইকবাল কবিরকেও গ্রে'ফতার করা হয়েছিল। ইকবাল (৪৬) ছিলেন টোপনের মুরগি খামা'রের ম্যানেজো'র এবং তিনি বাস করতেন নিউইয়র্ক সিটির ব্রঙ্কসে। গ্রে'ফতারের পর উভ'য়কেই ৭৫ হাজার ডলার আন-সিকিউরড ব'ন্ডে জামিন প্রদান করা হয়।দ'ণ্ড ঘোষিত না হওয়া পর্যন্ত তাদেরকে ইলেক্ট্রনিক চিপস পরিয়ে দেয়া হয়েছে এবং কর্তৃপক্ষের অনুমতি সাপেক্ষে চলাফেরার নির্দেশ রয়েছে। ইকবালের বি'রুদ্ধেও আ'দালতে বিচার কার্য অব্যাহত রয়েছে বলে জানা গেছে।

সূত্র : এনআরবি নিউজ

Back to top button
.